Technology Update

মোবাইল সার্ভিসিংয়ে দিচ্ছেন ? একটু থামুন —

মোবাইল সার্ভিসিংয়ে দিচ্ছেন ? একটু থামুন —

 

আমাদের ফোন, ল্যাপটপ, ট্যাব ইত্যাদির হার্ডওয়্যার, সফটওয়্যার, ফার্মওয়্যার ইত্যাদিতে নানা কারণে সমস্যা হতে পারে যার শেষ চেষ্টা হচ্ছে, সার্ভিসিং । মানে Repair করতে দেয়া । আর সেটা করা হয় কোনো দোকানে, হতে পারে যমুনা-বসুন্ধরা, গুলিস্তান, এলাকা কিংবা ফুটপাত । তবে এসব ক্ষেত্রে প্রায়সময়ই বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হয় । নিচে তার কিছু নমুনা ও সমাধান পড়ুন :
.

১)সবসময় সার্ভিসে দেয়ার সময় দাম, সময় ও কি কি ঠিক করাতে হবে সেটা ভালো মতো জিজ্ঞেস করে নিবেন । অনেক দোকানে ফোন দিলে বলে, “দেখি আগে । দেখান “, বলেই ঠিক করা শুরু করে দেয় । দেখা গেল মাদারবোর্ডটা একটু ব্রাশ দিয়ে ঘষে আর কিছু সেটিংস চেঞ্জ করেই বিল ধরাবে ৫০০ টাকা ! ভালো মতো জিজ্ঞেস করে তবেই ঠিক করাতে বলবেন । আর ঠিক হবে কিনা, না হলে কি করনীয় সেটাও জেনে নিবেন । যতক্ষণ দোকানদার না বলছে, ” ঠিক না করতে পারলে বিল নিব না”, ততক্ষণ সার্ভিসে দিবেন না ।

২)সবসময়চেষ্টা করবেন দাঁড়িয়ে থেকে যেন ফোন ঠিক করাতে পারেন । এবং ফোনটি যেন ভালোমতো লক করা থাকে ।

৩)যদি ফোনটি তারা রেখে দিয়ে একটু পর বা ২ দিন পর আসতে বলে, তাহলে অবশ্যই অবশ্যই অবশ্যই ফোন থেকে ফেসবুক, জিমেইলসহ সব আইডি লগআউট করে দিবেন । সিম, মেমোরি খুল নিজের কাছে রেখে দিবেন । আপনার বা যে কারো কোনো আপত্তিকর, ব্যক্তিগত ছবি থাকলে সেটা ডিলিট করুন । I repeat, ডিলিট করুন । কারণ Gallery লক মানেই সব না । সে ব্রাউজার থেকে ফেসবুকে লগিন করবে, তারপর আপনার ছবিগুলো পাঠিয়ে দিবে তার অন্য আইডিতে । Gallery লক করলেও কিন্তু তা থেকে রেহাই পাবেন না । তখন একমাস পর দেখবেন, কিভাবে কিভাবে যেন আপনার স্ক্যান্ডাল বের হয়ে গেছে । ভুলেও তখন এসব জিনিষ ফোনে রাখবেন না । Cloud Drive-এ (যেমন Google Drive) রাখলেও সেটা লগআউট করে নিন । দোকানদার আপনার মার পেটের ভাই না যে এতটা নির্ভর করবেন ।

৪)সার্ভিসিংয়ের চার্জ, সময়, এক্সাক্টলি কি কি ঠিক করাতে হবে এগুলো বারবার Repeat-করে নিশ্চিত করিয়ে নিবেন । আর আপনার ফোন নাম্বার তাকে দিবেন, দোকানদারের ফোন নাম্বার নিয়ে নিবেন । তাকে ফোন দিয়ে চেক করবেন যে ফোনটি সে নিজে ধরছে কিনা । না ধরলে বলবেন কোনো সচল নাম্বার দিতে । আর ফোন রেখে গেলে প্রতিদিনই খবর নিন ফোনের কি অবস্থা । পারলে সরাসরি দোকানে যান ।

৫)আর অবশ্যই অবশ্যই তাকে ভালোমতো বলে নিবেন, কোনো অবস্থাতেই যেন ফোনে ‘Software’ আর ‘Flash’ না মারে । আর নতুন কোনো পার্টস ঠিক করানোর আগে যেন আপনাকে জানানো হয় ।

৬)ফোন রেখে গেলে, ফোনের পিছনে কোনো কাগজ আঠা দিয়ে লাগিয়ে বা মার্কার দিয়ে আপনার নাম ও মোবাইল নং টা লিখে দিবেন । তাকে বলুন, পারলে কোনো টোকেন দিতে । কারণ দোকানদারও মানুষ । সে-ও ভুলে যেতে পারে । শতশত ফোন তাকে ঠিক করতে হয় । সে সুযোগটা আপনি দিবেন না ।

৭)আপনি ছাড়া অন্য কাউকে যেন ফোনটি হস্তান্তর না করে সে বিষয়ে তাকে বারবার জানাবেন । দেখা গেল, গ্রুপ করে দোকানে গেলেন বা কেউ আপনাকে ফলো করলো । আপনি চলে যাওয়ার কয়েক ঘন্টা পর আপনার কোনো ‘দুষ্ট’ বন্ধু বা ঐ ব্যক্তি নিজেকে আপনার আত্মীয় বলে ২০০-৩০০ টাকা দিয়ে ২০ হাজারের ফোনটি হাতিয়ে নিল ।

৮)একান্ত বাধ্য না হলে গুলিস্তান, বায়তুল মোকাররম, পাতাল মার্কেট, নিউমার্কেট ইত্যাদি জায়গায় ফোন ঠিক করাতে নিবেন না । তবে এটা ঠিক সারা দেশে যদি সার্ভিসিং না পান, ঐ জায়গাগুলোতে পাবেন 💯💯। ঐ জায়গাগুলোতে ১-৬ নংগুলো আরো ভালোমতো অনুসরণ করুন । ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা : সেখানে একবার ব্যাটারি ও চার্জিং পোর্ট ঠিক করাতে নিয়ে গেলাম, বিল ৮০০, সময় লাগবে ৭ দিন । তারপর বড় ভাই ফোন আনতে গেলে বলে সে নাকি স্ক্রীনও ঠিক করিয়েছে, মোট বিল ১৫০০ । যে ফোনের ব্যাটারি ৮০০, তার স্ক্রীনের দাম নাকি ৭০০🥴। মার্কেটের নাম বললাম না । শত্রু বাড়াতে চাই না ।

৯)সার্ভিসিংয়ে যাওয়ায় আগে একটু আশেপাশের মানুষের সাহায্য নিন । YouTube ও আছে । কোনো বন্ধু-বান্ধবও যদি ফোন চায়, তার জন্যও ৩ নং পরামর্শটি Compromise করবেন না ।

১০)একা যাবেন না । এক দোকানে ঢুকেই মাথা গুঁজে দিয়েন না😑। আরো ৪-৫ টা দোকান ঘুরুন । দেখুন কে কি বলে । তারপর নিজে বাছাই করুন । দাম-দর করুন । তারা সবসময়ই বেশি দাম বলে থাকে ।

১১)৭নং য়ে যেসব জায়গার কথা বলা হয়েছে, সেখানে সাবধানে Deal করবেন । উগ্র হবেন না । দাম-দর ক্লিয়ার রাখবেন । সৎ থাকতে চেষ্টা করুন । তাদের মিষ্টি কথায় ‘ভরসা’ করতে যাবেন না । রিযিকের জন্য মানুষ অনেক কিছুই বলে থাকে । ঐসব জায়গায় কোনো ঝামেলা দেখলে একটু Sacrifice করে হলেও কেটে পড়ুন । নাহলে ফোন, মানিব্যাগ, মানইজ্জত যাবে । সাথে মাইর এক্সট্রা । কেননা অনেক অসাধু লোক ঐসব ভীড়ময় জায়গাগুলোতে চক্র বানিয়ে ঘুরে এবং সুযোগ পেলেই ফাঁদে ফেলবে ।

১২)সবশেষে, ডিভাইসটি বুঝে পাওয়ার পর সাউন্ড, ফাইল, ভিডিও, নেট কানেকশন, হার্ডওয়্যার ইত্যাদি ভালোমতো চেক করুন । যা ঠিক করাতে দিয়েছেন তা ভালো মতো চেক করুন ।

 

সাবধান হোন, সতর্ক হোন । একটু সচেতনতাই পারে বড় ক্ষতি থেকে বাঁচাতে ।

Leave a Reply

Back to top button